• মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ১১-১১-২০২২, সময়ঃ বিকাল ০৩:৪৬
  • ১৪৪২ বার দেখা হয়েছে

সুন্দরগঞ্জে গোপালচরণ স্কুলে স্কাউটদের দীক্ষানুষ্ঠান

সুন্দরগঞ্জে গোপালচরণ স্কুলে স্কাউটদের দীক্ষানুষ্ঠান

সুন্দরগঞ্জ প্রতিনিধি ►

গাইবান্ধার সুুন্দরগঞ্জ উপজেলার গোপাল চরণ দ্বি মূখী উচ্চ বিদ্যালয়ে স্কাউট দলের দীানুষ্ঠান ও অভিভাবক সমাবেশ অনু্ষ্টিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে বিদ্যালয় চত্বরে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি খয়বর হোসেন সরকার মওলার সভাপতিত্বে স্কাউট দীানুষ্ঠান ও অভিভাবক সমাবেশ সঅনুষ্ঠিত হয়। 

এতে বক্তব্য রাখেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মাহমুদ হোসেন মন্ডল, উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার বেলাল হোসেন, দহবন্দ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রেজাউল আলম রেজা, উপজেলা স্কাউট সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহজাহান মিঞা, প্রধান শিক্ষক মোস্তাফিজার রহমান, কাটগড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক ও স্কাউট সাবেক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী এটিএম মাসুদুর রহমান চঞ্চল ও সহকারী শিক্ষক গোলাম মোস্তফা বাবুল প্রমুখ। এর আগে বিদ্যালয়ের ৩২ জন শিক্ষার্থীকে স্কাউট দীা প্রদান করা হয়।  

নিউজটি শেয়ার করুন

  • মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ২১-১-২০২৩, সময়ঃ সকাল ০৮:১০
  • ১৪৪২ বার দেখা হয়েছে

নিউজটি শেয়ার করুন

  • মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ২৭-২-২০২৩, সময়ঃ দুপুর ০২:৫৪
  • ১৪৪২ বার দেখা হয়েছে

প্রাথমিকের বৃত্তির ফল মঙ্গলবার

প্রাথমিকের বৃত্তির ফল মঙ্গলবার

মাধুকর ডেস্ক ►

২০২২ সালে অনুষ্ঠিত প্রাথমিক বৃত্তি পরীক্ষার ফল মঙ্গলবার প্রকাশ করা হবে। সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বক্তব্য রাখবেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন এমপি। উপস্থিত থাকবেন মন্ত্রণালয়ের সচিব ফরিদ আহাম্মদ ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক শাহ রেজওয়ান হায়াত। 

জানা যায়, বৃত্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রাথমিক শিক্ষা অধদিপ্তরের ওয়েবসাইট http://www.dpe.gov.bd/এবং মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট http://www.mopme.gov.bd/ এবং স্থানীয়ভাবে বিভাগীয় উপপরিচালকের কার্যালয়, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের কার্যালয় এবং উপজেলা-থানা শিক্ষা অফিসারের কার্যালয় হতে পাওয়া যাবে।

২০২০ ও ২০২১ সালে কোভিড-১৯ পরিস্থিতিরি কারণে প্রাথমকি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা না হওয়ায় প্রাথমিক বৃত্তি প্রদান করা সম্ভব হয়নি। গত বছরের ২৮ নভেম্বর প্রাথমিক ও গণশক্ষিা মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় ২০২২ সাল হতে প্রাথমিক বৃত্তি পরীক্ষা গ্রহণের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। ৩০ ডিসেম্বর ২০২২ সালে প্রাথমিক বৃত্তি পরীক্ষা সারাদেশে একযোগে অনুষ্ঠিত হয়। 

৫ম শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে মেধাক্রম অনুসারে ২০ শতাংশ শিক্ষার্থী নিয়ে বৃত্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলা, প্রাথমিক গণিত, ইংরেজি ও প্রাথমিক বিজ্ঞান এ চারটি বিষয়ে বৃত্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এবারের বৃত্তি পরীক্ষায় ৪ লাখ, ৮৩ হাজার, ৭৫৯ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। মোট নম্বর ছিল ১০০ এবং সময় ছিল ২ ঘণ্টা।
 

নিউজটি শেয়ার করুন

  • মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ৪-৪-২০২৩, সময়ঃ সকাল ১০:০৫
  • ১৪৪২ বার দেখা হয়েছে

নওগাঁয় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের যৌন হয়রানীর অভিযোগ

নওগাঁয় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের যৌন হয়রানীর অভিযোগ

নওগাঁ প্রতিনিধি ►

নওগাঁর সাপাহারে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অবিনাশ চন্দ্র সাহার বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের যৌন হয়রানীর অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে গত রোববার উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট ১২জন সারিত একটি লিখিত অভিযোগ জমা দিয়েছেন অভিভাবকরা। 

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, জবই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অবিনাশ চন্দ্র সাহা তার স্কুলের বিশেষ করে পঞ্চম শ্রেণীর মেয়েদের শরীরে হাত দেয়, জড়িয়ে ধরে এবং বিভিন্ন সময়ে আপত্তিকর ভিডিও দেখিয়ে যৌন হয়রানিমূলক আচরণ করে থাকে। এতে করে মেয়েরা খুবই আতঙ্কে থাকে এবং অনেকেই বিদ্যালয়ে আসা বন্ধ করে দিয়েছে। এ বিষয়ে অভিভাবকরা অত্যন্ত চিন্তিত ও উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে। অনেকদিন ধরে প্রধান শিক্ষক এই ধরনের ঘটনার সাথে জড়িত বলে জানিয়েছে তারা।

অভিযোগের বিষয়ে প্রধান শিক্ষক অবিনাশ চন্দ্র সাহা বলেন, আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করেছে তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। আমি আমার শিক্ষার্থীদের সন্তান মনে করি। আর শ্রেণীকে সব শিক্ষার্থীদের মধ্যে কি কাউকে খারাপ ভিডিও দেখানো যায়? আমাকে হেনস্থা করার জন্য কয়েকজন উদ্দেশ্য প্রণীত ভাবে এ অভিযোগ করেছে।

এ বিষয়ে সহকারী শিক্ষা অফিসার অসীম সাহা ও রস্তম আলী বলেন, যদি এ ধরনের ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায় তাহলে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্যাহ আল মামুন অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ বিষয়ে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তাকে প্রধান করে ৩সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্তে যদি সত্যতা পাওয়া যায় তাহলে পরবর্তীতে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
 

নিউজটি শেয়ার করুন

  • মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ৮-২-২০২৪, সময়ঃ বিকাল ০৩:৪৬
  • ১৪৪২ বার দেখা হয়েছে

সৈয়দপুরে চলাচল অযোগ্য প্রধান সড়কগুলো দ্রুত সংষ্কারের দাবীতে পৌরবাসীর মানববন্ধন

সৈয়দপুর প্রতিনিধি

নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরের প্রধান প্রধান সড়কগুলো চলাচল হয়ে পড়ায় দ্রুত সংষ্কারের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১ টায় সৈয়দপুরের সকল বাম সংগঠনের ডাকে এই কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। শহরের সবচেয়ে নষ্ট হয়ে পড়া ব্যস্ততম সড়কে তামান্না মোড় হতে ওয়াপদা মোড় পর্যন্ত দীর্ঘ ৪ কিলোমিটার জুড়ে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে বিভিন্ন এলাকায় পৃথক পৃথক ব্যানারে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, ব্যবসায়ী ও অটোরিকশা শ্রমিকসহ সর্বস্তরের পৌরবাসী অংশ গ্রহণ করে। ৬টি পয়েন্টে বক্তব্য রাখেন উপস্থিত নেতৃবৃন্দ। 

কমিউনিস্ট পার্টির অফিসের সামনে বাম সংগঠনের মঞ্চে বক্তব্য রাখেন, ওয়ার্কার্স পার্টির উপজেলা সভাপতি তোফাজ্জল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আশিক জনি, জাসদ (ইনু) উপজেলা সভাপতি আজিজুল হক, কমিউনিস্ট পার্টির উপজেলা সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন জাভিস্কো। থানা সংলগ্ন উপজেলা অটোরিকশা চালক, মালিক ও শ্রমিক ইউনিয়নের মঞ্চে বক্তব্য বলেন, সংগঠনির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, জাতীয় পার্টির নেতা আলতাফ হোসেন, নারী নেত্রী সিদ্দিকা। 

শিল্প সাহিত্য পরিষদ মার্কেট এলাকায় উপজেলা স্বর্ণশিল্পী কারিগর শ্রমিক ইউনিয়ন (রেজি: নং ২৮৪৫) এর ব্যানারে বক্তব্য বলেন, ওই সংগঠনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হামিদুল ইসলাম ও সহ সভাপতি নুর ইসলাম। দীর্ঘ প্রায় ৫ বছর ধরে সৈয়দপুরবাসী রাস্তায় যাতায়াতের েেত্র চরম ভোগান্তির শিকার। পৌর এলাকার সিংহভাগ সড়ক ভেঙে চলাচল অযোগ্য হয়ে পড়লেও পৌর পরিষদ ৩ বছরেও কার্যকর কোন উদ্যোগ নেয়নি। বরং জনগণের বিােভের মুখে সংষ্কারের নামে থুকপালিস করে লাখ লাখ টাকা লুট করা হয়েছে। 

যে কারণে ২৮ লাখ টাকা খরচ করে শেরে বাংলা সড়ক মেইনটেনেন্সের মাত্র ১ মাসেই আগের চেয়ে বেশি খারাপ হয়ে পড়েছে সড়কটি। শহরের ৮০ শতাংশ সড়কেরই করুণ অবস্থা। এভাবে পৌর মেয়র লুটপাটে ব্যস্ত থাকায় জনদূর্ভোগ লাঘবে তাঁর বিন্দু মাত্র ভ্রুপে নাই। তারা বলেন, মেয়র নিজেকে প্রধানমন্ত্রীর প্রার্থী হিসেবে গর্ব করলেও তিনি তাঁর দ্বারা পৌরবাসীর সামান্যতম উন্নয়ন হয়নি। বার বার কথা দিয়েও তিনি কোন সড়কই সংষ্কার করেননি। এতে দিন দিন নানামুখী সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে সৈয়দপুর শহরের মানুষ। এথেকে উত্তরণে দ্রুতই বেহাল সড়কগুলো ভালো করার দাবী জানান তারা।

উল্লেখ্য, সৈয়দপুর দেশের অষ্টম বৃহৎ বাণিজ্য নগরী। প্রথম শ্রেণির পৌরসভা। উপজেলার ৮শ কিলোমিটার সড়কের মধ্যে ৫শ কিলোমিটার পাকা। এর মধ্যে ৪০০ কিলোমিটারই খানাখন্দ একাকার। শহরের প্রধান ৫ টি সড়কে চলাচলে অসহনীয় দূরাবস্থা।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়