• মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ৮-১০-২০২২, সময়ঃ দুপুর ১২:৩২

গাইবান্ধায় শিক্ষাবৃত্তির আর্থিক সহায়তা প্রদান

গাইবান্ধায় শিক্ষাবৃত্তির আর্থিক সহায়তা প্রদান

নিজস্ব প্রতিবেদক ►


প্রবাসী রেমিটেন্স যোদ্ধারা প্রবাসে থাকায় তারা অনেকে ঠিকমতো পরিবারে টাকা পাঠাতে পারেনা। এতে করে টাকার অভাবে অনেক শিক্ষার্থীর পড়াশোনা বন্ধ হয়ে যাবার উপক্রম হয়ে যায়। তাদের সন্তানদের কথা চিন্তা করে কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি ও পড়াশোনার যাবতীয় খরচ এর জন্য প্রবাসী সন্তানদের মাঝে গাইবান্ধায় শিক্ষাবৃত্তির আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

জনশক্তি, কর্মসংস্থান অধিদপ্তর (বিএমইটি)'র সহায়তায় কর্মসংস্থান ও জনশক্তি, অফিস গাইবান্ধার  আয়োজনে আজ বৃহস্পতিবার সকালে শহরের ডিবি রোডস্থ মুগ্ধ প্লাজায় অফিস রুমে জেএসসি, এসএসসি, এইচএসসি ও মাষ্টার্স এর ১৪ জন শিক্ষার্থীদের মাঝে আর্থিক সহায়তা হিসেবে চেক প্রদান করেন গাইবান্ধা সরকারি কলেজের অধ্য প্রফেসর খলিলুর রহমান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস এর সহকারি পরিচালক নেসারুল হক, প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক গাইবান্ধার ম্যানেজার আল আজম সরদার, ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার শাহজাহান আলী, সাংবাদিক সঞ্জয় সাহা প্রমুখ।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী মোছা: সায়দা বেগম জানান, আমার বাবা একজন কাতার প্রবাসী। আমাদের মত শিক্ষার্থীদের শিক্ষাবৃত্তির সুযোগ পেয়ে আমার খুব ভাল লাগছে। প্রবাসী কর্মীরা অনেক কষ্টে উপার্জন করেও কষ্টে থাকে। তারা ঠিকমতো পরিবারে টাকা পাঠাতে পারেনা। শিক্ষার্থীদের প্রতি মাসে একটা খরচ থেকেই যায়। টাকাটি কাজে লাগবে। এদের কথা চিন্তা করে সরকার একটি ভাল সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এটি কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস এর ভাল উদ্যোগ।

গোবিন্দগঞ্জ বাসিন্দা ও প্রবাসী জিল্লুর রহমান জানান, আমি ছুটিতে এসেছি। প্রবাসীদের সন্তানদের লেখাপড়ার চিন্তা করে সরকার, এবং কর্মসংস্থান ও জনশক্তি, অফিস শিক্ষার্থীদের শিক্ষাবৃত্তির যে সুযোগ করে দিয়েছে। এটি একটি ভাল উদ্যোগ। তবে এটির প্রচার কম। আমি চাই এটি আরও প্রচার হোক। তবে মানুষ উপকৃত হবে। বর্তমান সরকার প্রবাসীদের জন্য উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড হাতে নিয়েছে। প্রবাসের মধ্যভাগে বাংলাদেশিরা অনেক কষ্টে আছে। যারা বৈধভাবে গেছে তারা একটু হয়ত ভাল চলছে। তবে যারা অবৈধভাবে গেছে তারা মানবেতর জীবন যাপন করছে। এটি দেখা উচিৎ। তারা যদি সরকারি ভাবে ট্রেনিং নিয়ে বৈধভাবে যেত তাহলে এ সমস্যা হত না।

কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস গাইবান্ধার সহকারি পরিচালক নেসারুল হক জানান, প্রবাসে বাংলাদেশিরা অনেক কষ্টে থাকে। তারা ঠিকমতো পরিবারের সদস্যদের ও সন্তানদের পড়ালেখার খরচ ঠিকমতো চালাতে পারেনা। এতে করে অনেক মেধাবী শিক্ষার্থীর পড়াশোনা বন্ধ হয়ে যাবার উপক্রম হয়। তাদের কথা চিন্তা করে সরকারের  উদ্যোগকে কাজে লাগিয়ে আমরা এই শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করছি। এসএসসি ২০২১ ব্যাচ এর ৫ জন শিক্ষার্থীদের মাঝে জনপ্রতি ২৭ হাজার ৫শ টাকা, এসএসসি ২০২০ ২য় কিস্তি হিসেবে ৩ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ২৭ হাজার ৫শ ও এসএসসি ২০২০ এর প্রথম দফা হিসেবে ৬ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ৩৪ হাজার করে মোট ৪ ল ২৪ হাজার টাকার চেক প্রদান করা হয়। শিক্ষার্থীদের বিয়ের আগ মুহুর্ত পর্যন্ত আমরা এই শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে যাব।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়