• মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ১-১-২০২৩, সময়ঃ বিকাল ০৫:০২
  • ৬৯ বার দেখা হয়েছে

গাইবান্ধা-৫ আসনের উপ-নির্বাচন সমীকরণ

গাইবান্ধা-৫ আসনের উপ-নির্বাচন সমীকরণ

ভবতোষ রায় মনা ►

গাইবান্ধা-৫ (সাঘাটা-ফুলছড়ি) আসনের ১২ অক্টোবরের উপ-নির্বাচনকে কেন্দ্র করে হাট-বাজার ও চায়ের দোকানগুলোতে যেভাবে আলোচনার ঝড় উঠেছে, এবার কিন্তু তার বিপরীত ঘটনা দেখা যাচ্ছে এ নির্বাচনী এলাকায়। আগামী ৪ জানুয়ারী উপ-নির্বাচনের উত্তাপে সরগরম হয়ে উঠার কথা থাকলেও দেখা যাচ্ছে ভিন্ন চিত্র। এবার ভোট কেন্দ্রে ভোটার আনাটাই চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রার্থীদের। গত ১২ অক্টোবরের নির্বাচনে যে অনাঙ্খিত ঘটনার ফলে ভোট বন্ধ করে দেওয়ার বিষয়টি ভোটারদের মন খারাপের প্রধান কারণ বলে জানান একাধিক ভোটার। তারপরেও আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টির সমর্থকরা মূলত দিনরাত সভা-সমাবেশ, উঠান বৈঠক, ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন। 

গাইবান্ধা-৫ (সাঘাটা-ফুলছড়ি) আসনের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মাহমুদ হাসান রিপন, জাতীয় পার্টির এ এইচ এম গোলাম শহীদ, বিকল্পধারা বাংলাদেশের জাহাঙ্গীর আলম, সৈয়দ মাহবুবুর রহমান প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। তবে উপ-নির্বাচনের ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন না স্বতন্ত্র প্রার্থী (আপেল মার্কা) নাহিদুজ্জামান নিশাত। 

নির্বাচন বিষয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মাহমুদ হাসান রিপন বলেন, উপনির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হবে। নৌকা উন্নয়নের প্রতীক। এ প্রতীকে ভোট দিলে দেশের উন্নয়ন হয়। ভোটাররা নৌকায় ভোট দিতে ভুল করবেন না। আমি নির্বাচিত হলে গাইবান্ধার বালাসি থেকে জামালপুরের বাহাদুরাবাদ পর্যন্ত টানেল নির্মাণ ও ভাঙনরোধে স্থায়ী ব্যবস্থার উদ্যোগ নেবো।” 

জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী গোলাম শহীদ রঞ্জু বলেন, ১২ অক্টোবর নির্বাচনটি বাতিল হওয়ার মধ্য দিয়ে জনগণের অধিকার আবার ফিরে আসছে। বিগত নির্বাচনের মত কোনভাবে প্রভাবিত হবে না এবং সঠিক একটা নির্বাচন উপহার দিবে। সেই বিশ^াস নিয়ে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। ভোট যদি সুষ্ঠু, জালিয়াতি, কারচুপি না হয় অবশ্যই প্রয়াত রাষ্ট্রপতি এরশাদের লাঙ্গল প্রতীককে ভোটাররা বিজয়ী করবেন বলে আমার বিশ্বাস।”

সাঘাটা ও ফুলছড়ি দুই উপজেলার ১৭টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত গাইবান্ধা-৫ আসন। আগামী ৪ জানুযারী উপ-নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএমে) ১৪৫টি কেন্দ্রের ৯৫২টি বুথে ভোট নেওয়া হবে। সাঘাটা উপজেলার ২ লক্ষ ২৫ হাজার ৭০ জন এবং ফুলছড়ি উপজেলার ১ লক্ষ ১৪ হাজার ৬ শত ৭৬ জনসহ মোট ৩ লক্ষ ৩৯ হাজার ৭ শত ৪৩ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

উল্লেখ্য: গাইবান্ধা-৫ (সাঘাটা-ফুলছড়ি) আসনের সংসদ-সদস্য ও ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী ২৩ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। নির্বাচন কমিশন আসনটি শূন্য ঘোষণার পর ১২ অক্টোবর উপ-নির্বাচনের দিন ধার্য হয়। ভোটে অনিয়ম করায় তা বাতিল করা হয়। গত ১৪ নভেম্বর ওই অনিয়মের প্রতিবেদন জমা দেওয়া হয়। তদন্তে ১২৫ জন প্রিজাইডিং অফিসার ও পাঁচ কেন্দ্রের পাঁচজন পুলিশ উপ-পরিদর্শকের বিরুদ্ধে দায়িত্ব অবহেলার প্রমাণ পাওয়ার কথা জানান সিইসি কাজী হাবিবুল আউয়াল। তদন্ত শেষে গত ৬ নভেম্বর আগারগাঁও নির্বাচন ভবনে নির্বাচন কমিশন সচিব জাহাঙ্গীর আলম আগামী ৪ জানুয়ারি গাইবান্ধা-৫ আসনের উপ-নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়