• মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ২৫-১০-২০২২, সময়ঃ রাত ০৮:৫০
  • ১১৯ বার দেখা হয়েছে

গোবিন্দগঞ্জে সুবিধাভোগীদের মাঝে খাওয়ার অযোগ্য ও দুর্গন্ধযুক্ত চাল বিতরণ 

গোবিন্দগঞ্জে সুবিধাভোগীদের মাঝে খাওয়ার অযোগ্য ও দুর্গন্ধযুক্ত চাল বিতরণ 

গোবিন্দগঞ্জ প্রতিনিধি ►

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের দেবপুর পয়েন্টে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর আওতায় সুবিধাভোগীদের মাঝে খাওয়ার অযোগ্য ও দুর্গন্ধযুক্ত নিম্নমানের চাল বিতরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

স্থানীয়রা জানান উপজেলার তালুককানুপুর ইউনিয়নের দেবপুর বাজারের খাদ্যবান্ধব কর্মসুচীর ডিলার আশরাফুল ইসলাম গোলাপবাগ খাদ্য গুদাম থেকে চলতি মাসের কোঠায় ৫০ কেজির ১৩৩ বস্তা ২০ কেজি চাল উত্তোলন করেন। এছাড়াও পূর্বের ৩৮ বস্তা ২০ কেজি চাল মজুদসহ মোট ১৭১ বস্তা ৪০ কেজি চাল আজ মঙ্গলবার বিতরণ শুরু করেন। সকালে চাল বিতরণের সময় খাওয়ার অযোগ্য ও দুর্গন্ধময় নি¤œমানের চাল হওয়ায় উপকারভোগীরা চাল নিতে অস্বীকৃতি জানায়। পরে এনিয়ে হট্টগোল শুরু হলে তারা চাল না নিয়ে সেখানে অবস্থান নেয়।

এর একপর্যায়ে ডিলারের লোকজন এই চাল গ্রহণ না করলে কোঠা মার যাওয়ার হুমকি দিয়ে উপকারভোগীদের চাল নিতে বাধ্য করেন। সুবিধাভোগীরা জানায়, নিম্নমানের এই চাল খাওয়ার সম্পূর্ণ অযোগ্য। এমনকি হাঁস-মুরগীও খাবে না। গত কোঠাতেও এই ধরণের চাল বিতরণ করা হয়েছিল। সে চালের ভাত খেয়ে অনেকেই নানা ধরণের পেটের পীড়ায় আক্রান্ত হন। তারা খাওয়ার যোগ্য চাল বিতরণের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানান।

চাল বিতরণের সময় ঘটনাস্থলে গিয়ে সাংবাদিকরা ট্যাগ অফিসার আব্দুল কাদেরকে না পেয়ে মোবাইল ফোনে অনুউপস্থিতির কারণ জানতে চাইলে তিনি কোন সদুত্তর উত্তর দিতে পারেননি এবং সেই সাথে তিনি জানান, নি¤œমানের চাল বিতরণের বিষয়েও কিছু জানা নেই।

এদিকে উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তার নির্দেশে গোলাপবাগ খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনোয়ারুল ইসলাম বিকেল ৫টার দিকে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েছে দেখতে পান বাজারের পাশে একটি বাড়ি থেকে খাদ্যবান্ধব কর্মসুচীর চাল বিতরণ চলছে। ডিলার ইতিমধ্যে ২৭১ বস্তা ৪০ কেজির  মধ্যে ১৫১ বস্তা চাল বিতরণ করেছে এবং বাকী চাল ১১৯ বস্তা চাল মজুদ রয়েছে। তিনি সেই চালের নমুনা সংগ্রহ করে  উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তার নিকট জমা দেন। এ ব্যাপারে গোলাপবাগ খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, উক্ত চাল তার গুদামের নয়।

এ ব্যাপারে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক স্বপন কুমার দে জানান, বিতরণকৃত চালের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফ হোসেন জানান, এ ধরণের অভিযোগ পাওয়ার পর খাদ্য কর্মকর্তাকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়