• মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ২৬-৯-২০২২, সময়ঃ সকাল ০৮:৫৪
  • ৭৪১ বার দেখা হয়েছে

ঘোড়াঘাটে একটি ব্রীজের অভাবে মানুষের ভোগান্তি

ঘোড়াঘাটে একটি ব্রীজের অভাবে মানুষের ভোগান্তি

ঘোড়াঘাট প্রতিনিধি ►


প্রতিদিন স্কুল,কলেজ,ব্যবসায়িক, চাকুরিজীবীসহ হাজার হাজার মানুষজন পারাপার হয় করতোয়া নদীর হাজিরঘাটের খেয়া পারাপারে। সম্বল একটি মাত্র খেয়া পারাপারের নৌকা। ওপারে পলাশবাড়ী উপজেলা আর নৌকা থেকে এপারে পা রাখলেই ঘোড়াঘাট পৌর শহর। স্বাভাবিক কারনেই ওপারের ১০/১২টি গ্রাম থেকে ছাত্র ছাত্রীসহ লোকজন এপারে ছুটে আসে ভাল কিছু পাওয়ার আশায়। ঘোড়াঘাট পৌরশহরে পড়তে আসা স্কুল কলেজগুলিতে প্রতিদিন অসংখ্য ছাত্রছাত্রী জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ওপার থেকে এপারে চলে আসে।  


সরজমিনে ঘোড়াঘাট হাজিরঘাটে গিয়ে দেখা যায় প্রাইমারী থেকে কলেজ পড়–য়া অনেক ছাত্র ছাত্রী নদী পারাপারের জন্য অপো করছে। আবার অনেক এনজিও কর্মীও প্রতিদিন ওই সমস্ত গ্রামে যায় কিস্তির টাকা লেনদেনের জন্য। তাদেরকে অনেকটা বাধ্য হয়েই বাইসাইকেল, মোটরসাইকেল নৌকাতে উঠিয়ে নদী পার হতে হয়। বর্ষাকালে নদী যখন উত্তাল থাকে তখন জীবনের হুমকী নিয়ে সকলকে পারাপার হতে হয়। নদীর ওপারের ১০/১২টি গ্রামের কৃষকেরা তাদের ফসল বিক্রয়ের প্রধান বাজার ঘোড়াঘাটসহ রানীগঞ্জ ও বৃহত্তম কামদিয়ার হাটবাজারগুলি। ওই সমস্ত চাষীদের পন্যসামগ্রীসহ জীবনের ঝুকি নিয়ে করতোয়া নদী পার হলে মাত্র ২কিলোর মধ্যেই ঘোড়াঘাট পৌরহাট ও বাজার। অন্যদিকে পলাশবাড়ী ও চতরা ৫থেকে ১০কিলোটিার দুরে। শুধু একটি ব্রীজের অভাবে যুগ যুগ ধরে চলছে ভোগান্তি।

ঘোড়াঘাট হাজিরঘাটে ব্রীজ নির্মানের প্রতিশ্রতি অনেক নেতা,এমপিরা দিয়েছেন কিন্তু কথা রাখেননি কেউ।অথচ গুরুত্বপূর্ণ এই স্থানে ব্রীজ নির্মান করা আশু প্রয়োজন হয়ে পরেছে। হাজিরঘাটে ব্রীজ নির্মাণ হলে ঘোড়াঘাটসহ এ অঞ্চলের লোকজন সহজেই রংপুর পীরগঞ্জ সহ ওই সমস্ত এলাকায় অনেক কম সময় ও কম খরচে যাতায়াত করতে পারবে। যে কারণে একটি গুরুত্বপুর্ণস্থানে ব্রীজ নির্মানের দাবী পলাশবাড়ী উপজেলার ১০/১২টি অবহেলিত গ্রামবাসীসহ ঘোড়াঘাট উপজেলাবাসীর। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কতৃপরে দৃষ্টি কামনা করেছেন ভূক্তভোগী এলাকাবাসী। 
 

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়