• মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ৩১-১২-২০২২, সময়ঃ দুপুর ০২:০৫
  • ৯৫ বার দেখা হয়েছে

তীব্র শীতে কাবু চিলমারী 

তীব্র শীতে কাবু চিলমারী 

চিলমারী(কুড়িগ্রাম)প্রতিনিধি ►

কয়েকদিনের টানা শৈত্যপ্রবাহ ও ঘন কুয়াশার চাঁদরে ঢেকে গেছে উত্তরের জেলা কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলা। সকাল গড়িয়ে দুপুর হলেও দেখা মিলছে না সূর্যের আলোর। সকালে শিশির ভেজা ঘন কুয়াশা ও তীব্র ঠান্ডার মাঝেও জীবিকার সন্ধানে খেটে খাওয়া মানুষগুলো বিস্তৃর্ণ ফসলের মাঠে কাজ করে যাচ্ছেন। আবার অনেকেই তীব্র ঠান্ডায় কাজে যেতে পারেনি। ফলে হাঁড়-কাঁপানো ঠান্ডায় বাড়ীতে অলস সময় পাড়  করছেন।

এদিকে আজ ঘন কুয়াশার কারণে নদী পথে নৌ চলাচল কিছু টা বিঘ্ন ঘটেছিল। নৌকা চালক রাব্বি বলেন, সকালে তীব্র শীতে কারণে নৌকা চালাতে পারি নাই। তবে কুয়াশা কমলে নৌ চলাচল স্বাভাবিক হবে। রাজারহাট আবহাওয়া অফিস সূত্র বলছে, আজকে কুড়িগ্রামে ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে।  শীত ও কুয়াশার এ অবস্থা অব্যাহত থাকবে। জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহের শেষে শীতের তীব্রতা আরও বাড়বে বলেও জানিয়েছেন। 

খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, এ উপজেলায় তিনটি ইউনিয়নই ব্রহ্মপুত্র নদ বেষ্টিত। সদর এলাকার থেকে চরাঞ্চলে শীতের প্রকোপ একটু বেশি। চিলমারী ইউনিয়নের চর শাখাহাতী এলাকার মাইদুল ইসলাম বলেন,  কয়েকদিন থেকে ঠান্ডা বেশি হওয়ায় তেমন কোন কাজ করতে পারছেন না। এমন ঠান্ডায় চলাচলে অসুবিধা হয়েছে। 

শীতের প্রকোপ বাড়ার সাথে সাথে এ উপজেলায় শীতার্তদের পাশে দাঁড়িয়েছে প্রশাসন সহ বিভিন্ন সংগঠন।  এরই মধ্যে গতকাল ব্রহ্মপুত্র নদের পাড় এলাকায় প্রায় শতাধিক কম্বল বিতরণ করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উলিপুর সার্কেল) মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম। 

উপজেলা প্রাণিসম্পদ সূত্র বলছেন, প্রতিনিয়ত শীতের তীব্রতা বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে গৃহ পালিত পশু পাখিদের বিভিন্ন রোগ দেখা দিচ্ছে। ইতিমধ্যে উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় বেশ কয়েকটি ছাগল মারা গিয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।  উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাহবুবুর রহমান  বলেন, আমরা অসহায় শীতার্তদের পাশে আছি।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়