• মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ২৮-৯-২০২২, সময়ঃ সন্ধ্যা ০৬:০৬
  • ৯৫ বার দেখা হয়েছে

দিনাজপুরে দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে ১৩ লাখ টাকার শিক্ষা বৃত্তি বিতরণ

দিনাজপুরে দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে ১৩ লাখ টাকার শিক্ষা বৃত্তি বিতরণ

দিনাজপুর প্রতিনিধি ►
দিনাজপুরে বেসরকারী সংস্থা ইকোর সহযোগিতায় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝ শিক্ষাবৃত্তি চেক বিতারন করা হয়েছে ।
আজ বুধবার সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এডুকেশনাল চ্যারিটেবল অ্যান্ড হিউম্যানিটারিয়ান অর্গানাইজেন (ইকো)এর সহযোগিতায় এবং বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা আমান বাংলাদেশের বাস্তবায়নে এ শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হয়।  
জেলার মোট ৯৮ জন দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে ১৩ লাখ ৩৫ হাজার টাকার শিক্ষা বৃত্তির চেক তুলে দেন প্রধান অতিথি সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা মর্তুজা আল মুঈদ। এ সময় তিনি বলেন, সমাজে যারা বিত্তবান ও প্রতিষ্ঠিত তাদের সমাজের প্রতি দায়বদ্ধতা রয়েছে। আজ যারা তোমরা এই সহযোগিতা গ্রহন করলে, আগামীতে তোমরা প্রতিষ্ঠিত হলে, অসহায় মানুষের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেবে। নিজেরদের দারিদ্রতা যেভাবে গ্রহন করেছ একদিন তোমরা প্রতিষ্ঠিত হবা । সেই দিন আজকের এই দিনের কথা মাথায় রেখে সেই সময়ের দরিদ্র মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের সহযোগিতা করে আজকের ঋন পরিশোধ করার চেষ্ঠা করবা ।   
অনুষ্ঠানে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজের ২০ জন, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৮ জন, দিনাজপুর সরকারি কলেজের ১৫ জন, বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ৬ জন, রংপুর মেডিক্যাল কলেজের ৭ জন, রাজশাহী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১জন, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০ জন ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যায়েল ১১ জন শিক্ষার্থীদের মাঝে এই শিক্ষা বৃত্তি প্রদান করা হয়।

দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সুব্রত মজুমদার ডলারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ইকো’র দিনাজপুর স্থানীয় প্রতিনিধি মো: আরিফুর রহমান, হেড অব বাংলাদেশ প্রজেক্ট আমান এর মো: আলী হোসেন ও দৈনিক খবর একদিন প্রত্রিকার সম্পাদক মোফাসিরুল রাশেদ  প্রমূখ।

অনুষ্ঠানে শিক্ষাবৃত্তির চেক গ্রহণকালে দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মো: একরামুল হক বলেন, বাবা সামান্য জমিতে কৃষি কাজ করেন। তিন ভাই-বোনের পড়া-লেখার খরচ চালাতে হিমসিম খেতে হয় তাকে । ইকো’র এই সহযোগিতা পেয়ে আমার অনেক উপকার হয়েছে। এই সহযোগিতা আমার পড়াশোনার পথ সুগম করেছে।

দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মোছা: মোসলিমা খাতুন বলেন, বাবা একটি বেসরকরি স্কুলে অফিস সহকারীর কাজ করেন। মেডিক্যাল শিক্ষায় ব্যবহারিক ক্লাসের খরচের জন্য বারবার বাবার কাছে টাকা চাইতে হতো। এই শিক্ষাবৃত্তি পাওয়ায় বারবার বাড়ি থেকে টাকা চাইতে হয় না।

আমেরিকা ভিত্তিক সেবা সংস্থা অ্যাসোসিয়েশন ফর ম্যাস এডভান্সম্যান্ট নেটওয়ার্কের (আমান) সহযোগিতায় স্বেচ্ছাসেবী ও উন্নয়ন সংস্থা ইকো দীর্ঘদিন দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীদের উচ্চ শিক্ষার পথ সুগম করতে শিক্ষাবৃত্তি দিয়ে আসছে।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়