• মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ২৮-১১-২০২২, সময়ঃ বিকাল ০৩:০৮
  • ৫৬ বার দেখা হয়েছে

দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের পাশের হার ৮১ দশমিক ১৬ শতাংশ, জিপিএ ৫ পেয়েছে ২৫ হাজার ৫৮৬ জন

দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের পাশের হার ৮১ দশমিক ১৬ শতাংশ, জিপিএ ৫ পেয়েছে ২৫ হাজার ৫৮৬ জন

দিনাজপুর প্রতিনিধি ►

দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষা (এসএসসি)-২০২২ ফলাফল প্রকাশ করেছেন। এ বছর পাশের হার ৮১ দশমিক ১৬ শতাংশ। জিপিএ ৫ পেয়েছে ২৫ হাজার ৫৮৬ জন ছাত্র-ছাত্রী। আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসার তোফাজ্জুর রহমান  আনুষ্ঠানিকভাবে সাংবাদিকদের নিকট এই ফলাফল প্রকাশ করেন। 

দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড সূত্রে জানা গেছে,  এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় ১ লক্ষ ৭৬ হাজার ৮৪৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে এসএসসি পরীক্ষায় ১ লক্ষ ৭৪ হাজার ৫৭৭ জন ছাত্রছাত্রী অংশ গ্রহন করেন। অনুপস্থিত পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ২ হাজার ২ শত ৬৯ জন। 
এ বছর ১ ল ৪১ হাজার ৬৮২ জন ছাত্রছাত্রী এসএসসি পাশ করেছে। পরীক্ষায় উপস্থিত ছাত্রীর সংখ্যা ছিল ৮৬ হাজার ৩৭২ জন আর  ছাত্রের উপস্থিত সংখ্যা ছিল ৮৮ হাজার ২০৫ জন। 

এ বছর ছাত্রের তুলনায় ছাত্রীর পাশের সংখ্যা ও জিপিএ ৫ এর সংখ্যাও বেশি পেয়েছে ছাত্রীরা। ছাত্রীর পাশের হার ৮১ দশমিক ৫৫ শতাংশ এবং ছাত্রের পাশের হার ৮০ দশমিক ৭৭ শতাংশ। জিপিএ ৫ পেয়েছে ছাত্রী ১৩ হাজার ৩৬৮ জন আর ছাত্র জিপিএ-৫ পেয়েছে ১২ হাজার ২১৮ জন। বহিস্কৃত পরীক্ষার্থীর  সংখ্যা ছিল ৩৬। 

দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এ বছর কোন পরীক্ষার্থী পাস করে নাই এমন বিদ্যালয়ের সংখ্যা ৫টি। ৮৭ বিদ্যালয় শতভাগ পাস করেছে। 

২৭৭টি কেন্দ্রের মাধ্যমে ২ হাজার ৬৯০টি বিদ্যালয়ের পরীক্ষার্থীরা এসএসসি পরীায় অংশগ্রহণ করেন। এদের মধ্যে নিয়মিত পরীার্থীর সংখ্যা ছিল ১ ল ৬৮ হাজার ৫৭৩ জন অনুপস্থিত শিক্ষার্থী ছিল ১ হাজার ৬৯৫ জন। এবং নিয়মিত পরীক্ষার্থীর পাশের সংখ্যা রয়েছে ১ ল ৩৫ হাজার ৬১২ জন। 

দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক তোফাজ্জুর রহমান জানান, এ বছর পাশের হার অনেক কমেছে তবে জিপিএ ৫ এর সংখ্যা বেড়েছে। কোভিড ১৯ আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থাকে অনেক পিছিয়ে দিয়েছে  তাই সরকার নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ছাত্রছাত্রীরা এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। এ বছর যে সকল বিদ্যালয়ের পাশের হার শুন্যেতে কোঠায় তাদেও বিরুদ্ধে মন্ত্রানালয়ে লিখা হবে। যে এ সকল বিদ্যালয়ের পাঠদানের অনুমতি বাতিল করা হয়।

কারণ ঐ সকল বিদ্যালয়ে পরীক্ষার্থীর সংখ্যাও ১ থেকে ৫ জন মাত্র।  এ সময় আরোও উপস্থিত ছিলেন কলেজ পরিদর্শক প্রফেসার ফারাজ উদ্দীন তালুকদার, উপ-সচিব ড. আব্দুর রাজ্জাক, উপ বিদ্যালয় পরিদর্শক মাহমুদুর রহমান, উপ পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (মাধ্যমিক) মানিক হোসেন, সহ পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক  রেজাউল করিম চৌধুরী, দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড কর্মচারী ইউনিয়ন সাধারন সম্পাদক সৈয়দ মাহমুদ উল করিম প্রমুখ। 
  

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়