• মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ৩০-১০-২০২২, সময়ঃ বিকাল ০৩:৪১

ফুলবাড়ীতে অটো রিকশা চালককে হত্যা

ফুলবাড়ীতে অটো রিকশা চালককে হত্যা

ধীমান চন্দ্র সাহা, ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) ►

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে জনি আহম্মেদ (২১) নামের এক অটো রিকশা চালকের মরদেহ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। রবিবার (৩০ অক্টোবর) সকালে উপজেলার শিবনগর ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া মাছুয়াপাড়া এলাকার হক ব্রিক্স নামের ইটভাটার পূর্বপার্শ্বের ইউক্যালিপটাস বাগান থেকে জনি আহম্মেদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। দুর্বৃত্তরা জনি আহম্মদে কাঁচি দিয়ে খুচিয়ে খুচিয়ে হত্যার পর মরদেহ ওই এলাকায় ফেলে দিয়ে গেছে।  

নিহত জনি আহম্মেদ উপজেলার শিবনগর ইউনিয়নের রাজারামপুর, দক্ষিণ বাসুদেপুর (ডাঙ্গা) গ্রামের আতাউর রহমানের ছেলে এবং পেশায় একজন অটো রিকশা চালক ছিলেন।  সকালে খবর পেয়েই ফুলবাড়ী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আসাদুজ্জামান আসাদ ও ফুলবাড়ী থানার ওসি আশ্রাফুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

থানা পুলিশ ও পারিবার সূত্রে জানা যায়, জনি আহম্মেদ গত শনিবার (২৯ অক্টোবর) দুপুরে বাড়ী থেকে অটো রিকশা নিয়ে বাড়ী থেকে বের হন। গভীর রাত পর্যন্তও জনি আহম্মেদ বাড়ী ফিরে না আসায় তার স্ত্রী কাজল রেখা তার পিতা গিয়াস উদ্দিন ম-লকে ঘটনাটি জানান। গতকাল রবিবার (৩০ অক্টোবর) সকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেস বুকের মাধ্যমে কাজল রেখার মা রাবেয়া বেগম জনি আহম্মেদের মরদেহের ছবি দেখে বিষয়টি জানতে পারেন। পরে স্ত্রী কাজল রেখাসহ পরিবারের লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ সনাক্ত করেন। পরে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।
 
এদিকে এর আগে শনিবার (২৯ অক্টোবর) দিবাগত গভীর রাতে পার্বতীপুর উপজেলার হলদিবাড়ী এলকায় সন্দেহভাজন কয়েকজন ব্যক্তিকে টহল পুলিশ ধাওয়া করলে তারা একটি অটো রিকশা ফেলে পালিয়ে যায়। পরে পার্বতীপুর থানা পুলিশ অটো রিকশার বডিতে লেখা মোবাইল নম্বরের মাধ্যমে জানতে পারেন অটো রিকশাটি নিহত জনি আহম্মেদের। যেটি দুর্বৃত্তরা তার কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়েছিল।

নিহত জনি আহম্মেদেও শ্বাশুড়ি রাবেয়া বেগম বলেন, শনিবার (২৯ অক্টোবর) জনি অটো রিকশা নিয়ে বাড়ী থেকে বের হয়ে আর ফিনে না আসায় তাকে খোঁজাখুঁজি শুরু করা হয়। এক পর্যায়ে তার অটো রিকশাটি পার্বতীপুর থানা পুলিশের হেফাজতে রয়েছে বলে জানতে পারলেও জনির কোন খোঁজ পাননি। গতকাল রবিবার সকালে জনির মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। দৃর্ত্তৃরা কাঁচি দিয়ে খুচিয়ে খুচিয়ে হত্যা করেছে।

ইউপি সদস্য নূরুল ইসলাম বলেন, অটো রিকশা ছিনতাইয়ের জন্যই দুর্ত্তৃরা জনিকে হত্যা করেছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। 

ফুলবাড়ী থানার ওসি আশ্রাফুল ইসলাম বলেন, নিহত জনি আহম্মেদের মরদেহের সুরতহাল করার সময় তার গলায় ছোট কাঁচি দিয়ে খুচিয়ে ফুটো করা হয়েছে এমন অনেকগুলো ফুটো রয়েছে। ঘটনাস্থলে রক্ত মাখা একটি ছোট কাঁচি উদ্ধার করা হয়েছে। ধারনা করা হচ্ছে অটো রিকশাটি ছিনতাইকারি দুর্বৃত্তরা কাঁচি দিয়ে গলায় খুচিয়ে তাকে হত্যা করেছে। দুর্বৃত্তরাদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চলছে। 

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়