• মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ২৬-১০-২০২২, সময়ঃ বিকাল ০৪:০০
  • ৫৭ বার দেখা হয়েছে

ফুলবাড়ীতে পাল্টা-পাল্টি সংবাদ সম্মেলন

ফুলবাড়ীতে পাল্টা-পাল্টি সংবাদ সম্মেলন

ফুলবাড়ী প্রতিনিধি ►

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে ভূমি নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে পাল্টা-পাল্টি সংবাদ সম্মেলন করেছেন দুই পক্ষ। ফুলবাড়ী পৌরশহরের গৌরিপাড়া মৌজায় ২৪৯ দাগে পৈত্রিক সূত্রেপ্রাপ্ত ৬৭ শতাংশ জমি ভাগাভাগী নিয়ে দ্বন্দ্বে গত রবিবার (২৩ অক্টোবর) সংবাদ সম্মেলন করেন পৈত্রিক সূত্রেপ্রাপ্ত জমির মালিক দাবিদার মোহাম্মদ আলী কাদের নেওয়াজ।

ওই সংবাদ সম্মেলনে আনিত অভিযোগে প্রতিবাদ জানিয়ে গতকাল বুধবার (২৬ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০ টায় পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেছেন বিরোধপূর্ণ জমিটি টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিএম ইন্সটিটিউটের দাবিদার ওই প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ আবু তৈয়ব ছালাহ উদ্দিন।

টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিএম ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষের কক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য রাখেন অধ্যক্ষ আবু তৈয়ব ছালাহ উদ্দিন। 

তিনি বলেন, ফুলবাড়ী পৌর শহরের গৌরিপাড়া মৌজায় ২৪৯ দাগে ৬৭ শতাংশ জমির মধ্যে পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত ৩৫ শতাংশ জমিতে ২০০১ সালে ফুলবাড়ী টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিএম ইন্সটিটিউট প্রতিষ্ঠা করা হয়। পরবতীর্তে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নামে আবাসিক ভবন/সম্প্রসারণ কাজের নিমিত্তে ৩ কোটি ৫০ লাখ টাকায় চারতলা ভবন ভবন নির্মাণ কাজে প্রতিপক্ষরা বাঁধা প্রদান করছে। প্রতিপক্ষের হুমকিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন।

প্রতিষ্ঠানের জমির দিক নির্ণয় নিয়ে পারিবারিক দ্বন্দ চলে আসছিল যা সমঝোতাও হয়েছে এবং পশ্চিম দিকে প্রতিপক্ষের অংশ আর পূর্বদিকে ওই প্রতিষ্ঠানের অংশ। এরপরেও প্রতিপক্ষরা সমঝোতা না মেনে প্রতিষ্ঠানের জায়গাকে নিজেদের জমি দাবি করে ভবন নির্মাণের বাঁধাসহ হুমকি প্রদানসহ মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন তথ্য পরিবেশন করে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। যার বিন্দুমাত্র সত্যতা নেই। প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তিনি।

এ সময় শিক্ষক বিপ্লব কুমার দাস, মাহামুদুল হাসান, সোহরাব হোসেন, তারিকুল ইসলাম চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এ বিষয়ে প্রতিপক্ষ মোহাম্মদ আলী কাদের নেওয়াজ জানান, তার বাবা মরহুম দারাজ উদ্দিন মন্ডল তাদের দুই ভাইয়ের নামে ওই জমিটি সমানভাবে দিক নির্ণয় করে বন্টন করে দেওয়ার পরও তারভাই ও ভাইয়ের ছেলে ওই প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ আবু তৈয়ব ছালাহ উদ্দিন বন্টকনামা অনুযায়ী দিক নির্ণয় না মেনে গায়ের জোরে প্রতিষ্ঠান নির্মাণ করছেন। বিষয়টি নিয়ে বিজ্ঞ আদালতের রায় পাওয়ার পরও তারা সেই রায়কে উপেক্ষা করে চলেছেন। 

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়