• মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ৯-১-২০২৩, সময়ঃ বিকাল ০৩:৫৭

ব্যক্তি মালিকানাধীন ও সরকারি জমি ফেরতের দাবীতে রাণীনগরে মানববন্ধন

ব্যক্তি মালিকানাধীন ও সরকারি জমি ফেরতের দাবীতে রাণীনগরে মানববন্ধন

নওগাঁ প্রতিনিধি  ►

নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার কাশিমপুর এলাকায় প্রয়াত সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলমের স্ত্রীর বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ব্যক্তি মালিকানাধীন ও সরকারি জমি দখলে রাখার অভিযোগে মানববন্ধন করেছে ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্য ও স্থানীয় বাসিন্দারা। সোমবার উপজেলার উপজেলার কাশিমপুর মোড় এলাকায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। 

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, নওগাঁ-৬ (আত্রাই ও রাণীনগর) আসনের প্রয়াত সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলম ২০১৫ সালে রাণীনগর উপজেলার কাশিমপুর ইউনিয়নের কাশিমপুর রাজবাড়ী এলাকায় ১০বিঘা খাস সম্পত্তি ও ২৫টি পরিবারের ব্যক্তি মালিকানাধীন প্রায় ৩০বিঘা সম্পত্তি জবরদখল করে নেন। এরপর দখল করা সম্পত্তির চারিদিকে ইটের প্রাচীর ঘিরে সেখানে পল্লীশ্রী সম্বন্বিত কৃষি প্রদর্শনী খামার গড়ে তোলেন। সেখানে বেশ কিছু স্থাপনা গড়ে তোলা হয়। ভুক্তভোগী ব্যক্তিরা জমি ফেরত চেয়ে প্রতিবাদ ও মামলা করলে তাদেরকে নানা ভাবে অত্যাচার-নির্যাতন করা হয়। 

বিতর্কিত ওই সব সম্পত্তি দখলে রাখা অবস্থায় ২০২০সালে সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলম মারা গেলে তার স্ত্রী ও আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক উপ-কমিটির সাবেক সদস্য সুলতানা পারভীন (বিউটি) জমিগুলো দেখভাল করা শুরু করেন। দখল করা সম্পত্তি ছেড়ে দেওয়ার জন্য সুলতানা পারভীনকে ২০২১ সালের ২৫ নভেম্বর উপজেলা ভূমি অফিস থেকে নোটিশ পাঠানো হয়। নোটিশ প্রাপ্তির সাত দিনের মধ্যে সম্পত্তির দখল ছেড়ে দিতে বলা হলেও দীর্ঘ প্রায় ১৪মাস পেরিয়ে গেলেও সে সব স্থাপনা অপসারণ ও জায়গার দখল ছেড়ে দেওয়া হয়নি। পরবর্তীতে প্রশাসনও কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করেনি।    

ভুক্তভোগী পরিবারের দাবি, সম্পত্তি উদ্ধারের জন্য প্রশাসন ও রাজনৈতিক মহলে দিনের পর দিন অভিযোগ করে এবং ধরনা দিয়েও তাঁরা কোনো প্রতিকার পাচ্ছেন না। সবাই শুধু সময়ক্ষেপণ করেছেন। বর্তমানে ভুক্তভোগী পরিবারগুলো তাদের জমি হারিয়ে কষ্টে জীবনযাপন করছেন। দ্রুত জবরদখলে রাখা সম্পত্তিগুলো ভুক্তভোগী পরিবারকে ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য এবং ন্যায়বিচারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা। 

ভুক্তভোগী কাশিমপুর গ্রামের বাসিন্দা ও কাশিমপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক সাদেকুল ইসলামের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, স্থানীয় বাসিন্দা সুফিয়া বিবি, ইয়াদ আলী, আব্দুস সাত্তার, এবাদুল ইসলাম, ইদন আলী, আজিজার রহমান প্রমুখ। 

মানববন্ধনে সাদেকুল ইসলাম বলেন, ২০১৫ সালে সাবেক সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলম তার ব্যক্তি মালিকানাধীন ৯বিঘা সম্পত্তি দখল করে নিয়েছেন। ওই সময় দখল করা সম্পত্তি ছেড়ে দিতে বললে সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে হামলা করে নির্যাতন করেন। এ বিষয়ে আদালতে মামলাও চলমান রয়েছে।

আরেক ভুক্তভোগী সুফিয়া কামাল বলেন, সেই সময় ইসরাফিল আলম এমপির লোকজন আমার স্বামীকে বাড়ি তুলে নিয়ে গিয়ে জোর করে সাড়ে ৪বিঘা ব্যক্তি মালিকানাধীন সম্পত্তি লিখে নেয়। সাড়ে ৪ বিঘা সম্পত্তি লিখে দেওয়ার বদলে আমরা একটা টাকাও পাইনি। ওই সম্পত্তিই ছিল আমাদের বেঁচে থাকার একমাত্র অবলম্বন। এখন কঠিন দুঃখকষ্টে আমাদের দিন কাটতেছে। প্রশাসনের কাছে অনুরোধ আমাদের যেন সেই সম্পত্তি ফেরত দেওয়া হয়।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে মুঠোফোনে সুলতানা পারভীন বলেন, সম্প্রতি খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদারের উপস্থিতিতে নওগাঁর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) দুইপক্ষকে নিয়ে বসেছিলেন। সেখানে সবকিছু মিটমাট হয়ে গেছে। বিভিন্ন ঝামেলার কারণে যাদের জমি রেজিস্ট্রি করা হইছিলো না সেগুলোর বর্তমান একটা দাম নির্ধারণ করে দেওয়া হয় এবং সেই দামে আমরা জমিগুলো কিনে নিতে চেয়েছিলাম। যারা অভিযোগকারী ছিলেন তারাও বিষয়টি মেনে নিয়েছিলেন। কিন্তু এখন কেন আবার আন্দোলন করছে বুঝলাম না। আর সরকারি সম্পত্তি সেখানে যেগুলা আছে সেগুলো আমাদের লিজ নেওয়া সম্পত্তি। তিনি অভিযোগ করেন, আমাকে রাজনৈতিক ভাবে হেয় করার জন্য আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের ইন্ধনে কিছু লোক মানববন্ধন করেছে। এটা একটা চক্রান্ত। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহাদত হোসেন বলেন, কাশিমপুরে জমি নিয়ে দুইপক্ষের মধ্যকার বিরোধ দীর্ঘদিন চলছে। এর আগে ভুক্তভোগীরা একটা অভিযোগ করলে খাদ্যমন্ত্রী মহোদয়ের উপস্থিতিতে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) স্যার দুইপক্ষকে নিয়ে বসেছিলেন। তখন একটা সমঝোতা হওয়ার কথা শুনেছিলাম। তারপরেও আবার কেন অভিযোগ উঠছে বুঝতে পারছি না। আর এ বিষয়ে সাম্প্রতিক সময়ে কেউ আমাদের কাছে কোনো অভিযোগও করেননি। 

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়