• মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ২১-১১-২০২২, সময়ঃ বিকাল ০৫:৩৯
  • ৬৩ বার দেখা হয়েছে

সাদুল্লাপুরে সাক্ষীকে আসামীদের মারপিট, গুরুতর আহত

সাদুল্লাপুরে সাক্ষীকে আসামীদের মারপিট, গুরুতর আহত

সাদুল্লাপুর প্রতিনিধি ►

সাদুল্লাপুরে মামলার সাক্ষ্য প্রদান থেকে বিরত থাকার প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় সাক্ষী আতোয়ার হোসেন (৬৫) কে বেদম মারপিট করেছে আসামিরা। এতে গুরুতর আহত আতোয়ার বর্তমানে সাদুল্লাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। 
শনিবার রাতে উপজেলার নলডাঙ্গা পূর্ব খামার দশলিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সামনে এ ঘটনা ঘটে। আহত আতোয়ার হোসেন পূর্ব খামার দশলিয় গ্রামের মৃত. মুসলিম আলীর ছেলে।  

প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসী জানান, একই (পূর্ব খামার দশলিয়া) গ্রামের আমিনুল ইসলামের সাথে প্রতিবেশি আব্দুল খালেক গং দের সাথে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরে প্রায় ৮-৯ মাস আগে আব্দুল খালেক নেতৃত্বে ১৫-১৬ দূর্র্বত্ত আমিনুল ইসলামের বাড়ি-ঘরে হামলা করে ভাংচুর ও লুটপাট করে। এ নিয়ে সেই সময় আমিনুল ইসলাম বাদি ১৬ জনকে আসামী করে সাদুল্লাপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় আতোয়ার হোসেনকে সাক্ষী করা হয়। গত রবিবার (২০ নভেম্বর) ওই মামলায় সাক্ষ্য প্রদানের কথা ছিল আতোয়ার হোসেনের। 

আতোয়ার হোসেন অভিযোগ করে বলেন, ঘটনার দিন গত শনিবার রাত সাড়ে ৭ টার দিকে বাড়ি থেকে চা পানের জন্য ওই এলাকায়  তিনি যান। এ সময় আঃ খালেক, আলমগীর, গোলাম রব্বানী, সুজন, মিঠু মহুরীসহ ৮-৯ জন এসে তাকে ওই মামলার সাক্ষ্য প্রদানে বিরত থাকার প্রস্তাব দেন। কিন্তু এতে তিনি রাজি না হওয়ায় তাকে বেদম মারপিট করে। পরে স্থানীয় লোকজন চলে এলে দূর্র্বত্তরা চলে যায়। 

এ প্রসঙ্গে আব্দুল খালেকের সাথে যোগাযোগের জন্য মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেন নাই। 

নলডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের ৫ নং ওয়ার্ডের সদস্য মোঃ আব্দুল শেখ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, আতোয়ার হোসেন  বর্তমানে সাদুল্লাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। 

সাদুল্লাপুর থানার ওসি প্রদীপ কুমার রায় জানান, বিষয়টি তিনি শুনেছেন তবে এনিয়ে এখনও থানায় কোন লিখিত অভিযোগ হয় নাই। 

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়