• মাধুকর প্রতিনিধি
  • তারিখঃ ৩১-১২-২০২২, সময়ঃ দুপুর ০২:১৫
  • ১০৬ বার দেখা হয়েছে

সেই কষ্টি পাথরের পর এবার ৩ মণ ওজনের বেদী উদ্ধার

সেই কষ্টি পাথরের পর এবার ৩ মণ ওজনের বেদী উদ্ধার

গোবিন্দগঞ্জ প্রতিনিধি ►

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় সাড়ে ৩ কেজি ওজনের কষ্টি পাথরের মতো মূর্তি জব্দ করার পর এবার কষ্টি পাথরের মূল বেদীটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। এটির ওজন প্রায় ৩ মণ হবে।

শুক্রবার (৩০ ডিসেম্বর) রাতে উপজেলার কাটাবাড়ী ইউনিয়ের হ্যাদড়াকুড়ি গ্রামের ময়েজ উদ্দিনের ছেলে ফিরোজ মিয়ার গোডাউন থেকে ৩ মণ ওজনের বেদী উদ্ধার করা হয়।

এর আগে বিকেলের দিকে উপজেলার কাটাবাড়ী ইউনিয়নের ১ নম্বর কাটাবাড়ী গ্রামের সৈয়দ মকবুল আলীর খনন করা জমি থেকে সাড়ে ৩ কেজি ওজনের কষ্টি পাথরের মূর্তিটি উদ্ধার করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গোবিন্দগঞ্জের বৈরাগীর হাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রর ইনচার্জ মিলন চ্যার্টাজী।

স্থানীয়দের বরাদ দিয়ে মিলন চ্যাটার্জী জানান, ১ নম্বর কাটাবাড়ী গ্রামের সৈয়দ মকবুল আলী গংদের ভিটেজমির মাটি ভেকু দিয়ে খননের সময় প্রথমে কালো রঙের ওই মূর্তিটি পাওয়া যায়। সেটি শ্রমিকরা গোপনে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয়রা টের পায়। এরই মধ্যে মূর্তিটি উদ্ধার করে ইউপি চেয়ারম্যানের নিকট জমা করে। এ খবর পেয়ে চেয়ারম্যানের কাছ থেকে সাড়ে ৩ কেজি ওজনের কষ্টি পাথরে মতো মূর্তিটি জব্দ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে কাটাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান জোবায়ের হাসান মো. শফিক মাহমুদ জানান, স্থানীয়রা সাড়ে ৩ কেজির মূর্তিটি শ্রমিকদের কাছ থেকে উদ্ধার করে পরিষদের জমা দেয়। পরে ফাঁড়ি পুলিশকে খবর দেওয়া হলেও মূর্তিটি তাদের হাতে হস্তান্তর করা হয়। পরবর্তীতে অন্য জায়গা থেকে আবারও ৩ মণ ওজনের একটি বেদী উদ্ধার করেছে বলে শুনেছি।

এ বিষয়ে গোবিন্দগঞ্জের বৈরাগীর হাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রর ইনচার্জ মিলন চ্যার্টাজী জানান, প্রথমে সাড়ে ৩ কেজি ওজনের একটি মূর্তি জব্দ করা হয়। এরপর গোপন সংবাদে জানতে পারেন একই স্থানে আরও একটি পাথরের বেদী রয়েছে। এরপর ফের অভিযান চালিয়ে ফিরোজ মিয়ার গোডাউন থেকে ৩ মণ ওজনের বেদী উদ্ধার করা হয়।

এসব বস্তু কষ্টিপাথর কিনা সেটি পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য সংশ্লিষ্টদের খবর দেওয়া হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়